উচ্চ প্রাথমিকে সাড়ে ১৪ হাজার পদে নিয়োগ-এ স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

0
179

মেট্রোলাইভ নিউজ ডেস্ক: উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। কিছুদিন আগেই উচ্চ প্রাথমিকের ইন্টারভিউয়ের জন্য যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করে স্কুল সার্ভিস কমিশন। যদিও চাকরি প্রার্থীদের দাবি ছিল তালিকা স্বচ্ছ নয়। এবং ইন্টারভিউ লিস্টে ন্যূনতম চাকরি প্রার্থীদের প্রাপ্ত নম্বর দেওয়া নেই। এরপরই এই অভিযোগে আদালতের দ্বারস্থ হন বেশ কয়েক জন চাকরি প্রার্থী। আজ বৃহস্পতিবার ওই মামলার শুনানি ছিল। সেই শুনানি চলাকালীন এই মামলায় অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ দিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। এদিন আদালতের তরফে জানানো হয়েছে, আদালত পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া।

আদালত প্রাথমিক ভাবে অভিযোগের সারবত্তা মেনে নিয়েছে। আদালত মনে করেছে অভিযোগের যথেষ্ট ভিত।তি রয়েছে। এদিন ভৌত-বিজ্ঞান বিষয়ে অনিয়ম নিয়ে মূলত শুনানি শুরু হয়। এরপরেই আদালত উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দেয়। এই মামলার পরবর্তী শুনানি ৯ জুলাই। ফলে আবারও বেকায়দায় এসএসসির নিয়োগ প্রক্রিয়া।

মামলাকারীদের দাবি, সম্প্রতি রাজ্য সরকারের তরফে ইন্টারভিউর যে তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে তা নিয়ম মেনে হয়নি। সেখানে ব্যপক স্বজনপোষণ ও দুর্নীতি হয়েছে। তার জেরেই গত তালিকায় নাম থাকা অনেক যোগ্য প্রার্থীরই এই তালিকায় নাম নেই। এই অভিযোগ তুলে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন চাকুরিপ্রার্থীরা। মামলাকারীদের পক্ষে আইনজীবী হিসেবে ছিলেন, বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য, দিব্যেন্দু চ্যাটার্জি, ফিরদোস শামিম, সুদীপ্ত দাশগুপ্ত রা।এই বিষয়ে মামলাকারী দের তরফে আইনজীবী দিব্যেন্দু চ্যাটার্জী বলেন, , গতবার মেধাতালিকাতে নাম ছিল কিন্তু এবারের কমিশনের প্রকাশিত ইন্টারভিউয়ের লিস্টে নাম নেই অনেক চাকরিপ্রার্থীদের। পলিটিক্যাল সায়েন্স এবং সংস্কৃত বিষয়ের এই সমস্ত চাকরি প্রার্থী নিজেদেরকে বঞ্চিত ভাবছেন। এদিকে যাঁদের নাম রয়েছে ইন্টারভিউয়ের তালিকাতে আছে এমন একাধিক পরীক্ষার্থীদের থেকে বেশি নাম্বার রয়েছে পিটিশনারদের। যদিও তাঁরা তালিকায় জায়গা পাইনি। তাছাড়া ইন্টারভিউ তালিকায় টেটে প্রাপ্ত নম্বর, অ্যাকাডেমিক স্কোর সহ অন্যান্য মার্কস দেওয়া হয়নি। ফলে মামলা দায়ের হয়েছে।

সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, রাজ্যে প্রচুর শূন্যপদে নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। পুজোর আগে উচ্চ প্রাথমিকে প্রায় ১৪,৫০০ ও প্রাথমিকে ১০,০০০ পদে নিয়োগ হবে। পুজোর পরে আরও নিয়োগ করবে সরকার। সব মিলিয়ে প্রায় ৩২,০০০ শূন্যপদে নিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। সঙ্গে তিনি এও জানান, যোগ্য প্রার্থীরাই চাকরি পাবেন। এজন্য লবি করার দরকার নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে