খাল থেকে উদ্ধার বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ, উত্তেজনা গোঘাটে

0
296

এবার স্থানীয় খাল থেকে এক বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চঞ্চল্য ছড়াল হুগলির গোঘাট এলাকায়। মৃতের নাম কাশীনাথ ঘোষ(৩৭)। ঘটনাটি ঘটেছে গোঘাটের নকুন্ডা অঞ্চলের কোটা গ্রামে। উল্লেখ্য, ২২ জুলাই পার্শবর্তী নকুন্ডা গ্রামে খুন হন তৃণমূল কর্মী লালচাঁদ বাগ। তাকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ ওঠে স্থানীয় বিজেপি নেতা কর্মীদের ওপর। ২১ জনের বিরুদ্ধে গোঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ করে লালচাঁদের পরিবার। তৃণমূল কর্মী খুনের ঘটনায় ইতিমধ্যেই ৭জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১৪ জনের খোঁজে এখনও তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। এদিকে এরইমধ্যে স্থানীয় এই বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় এই মুহূর্তে আবার নতুন করে উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করেছে গোঘাট এলাকায়। জানা গেছে তৃণমূল কর্মী লালচাঁদ বাগের খুনের দায়ে অভিযুক্তদের তালিকায় এই কার্তিক ঘোষেরও নাম ছিল। স্বাভাবিক ভাবেই বিজেপি কর্মী কাশীনাথ  ঘোষের আকস্মিক এই মৃত্যুর  ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতর। তাদের কর্মী কাশীনাথ ঘোষ কে হাত বেঁধে খুন করে খালের জলে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে সরাসরি অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে। অন্যদিকে বিজেপির তোলা খুনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল শিবির। স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক মানস মজুমদার বলেন, এই ঘটনায় তৃণমূল কোনোভাবেই জড়িত নয়। বিজেপি মিথ্যা অভিযোগ করছে। তাঁর বক্তব্য ক’দিন আগে আমাদের কর্মী লালচাঁদ বাগকে যারা খুন করেছে তাতে অভিযুক্ত দের তালিকায় নাম রয়েছে এই ব্যক্তির। তাঁর মতে লালচাঁদ খুনের ঘটনায় এখনও ধরপাকড় চালাচ্ছে পুলিশ। হয়তো মদ্যপ অবস্থায় পুলিশের তাড়া খেয়ে ওই খালের ধারে লুকিয়ে ছিল, তারপর কোনোভাবে জলেডুবে মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। পাশাপাশি বিজেপির আরামবাগ জেলা সংগঠনের সভাপতি বিমান ঘোষের দাবি আমাদের বুথ সভাপতি কাশীনাথ ঘোষকে মাথায় আঘাত করে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে। এরজন্য যতদুর যেতে হয় আমরা যাব। এই পরিস্থিতিতে কোটা গ্রামের খাল থেকে কাশীনাথ ঘোষের মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে স্থানীয় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাদের। মৃতদেহ আটকে পুলিশকে ঘিরে ধরে প্রায় একঘন্টা বিক্ষোভ চলে। এরপর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠায় পুলিশ। এদিকে এক সপ্তাহের মধ্যেই এলাকায় পর পর দুটি রাজনৈতিক কর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় রীতিমত চাপে গোঘাট থানার পুলিশ। এদিকে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি মতো আজই নকুন্ডা গ্রামে আসাছেন রাজ্য তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল। দলীয় কর্মী লালচাঁদ বাগের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে তাঁরা। তারই মধ্যে বিজেপি কর্মীর এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে যাওয়ায় এলাকায় আসছেন বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসুও। সবমিলিয়ে আজ সারাদিনই টানটান উত্তেজনা গোঘাটের নকুণ্ডা অঞ্চলে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে