মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ভুয়ো টিকা কান্ডে ধৃত দেবাঞ্জনের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা

0
132

মেট্রোলাইভ নিউজ ডেস্ক: ভুয়ো টিকাকরণ কাণ্ডে কঠোর অবস্থান নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি কলকাতার পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্রকে নির্দেশ দিয়েছেন অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের বিরুদ্ধে যেন অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা দায়ের করা হয়। এর পাশাপাশি ঘনিষ্ঠমহলে মুখ্যমন্ত্রী নাকি বলেছেন এই অভিযুক্তকে প্রকাশ্য রাস্তায় টানা পাঁচ হাজার বার উঠবস করানো উচিত। বোঝাই যাচ্ছে টিকাকরণ নিয়ে যে কাণ্ড ঘটেছে তাতে একদম সন্তুষ্ট নন মুখ্যমন্ত্রী।

শুক্রবার কলকাতা পুলিশের কমিশনারকে একাধিকবার ফোন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তখনই নির্দেশ দেন এই বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিতে হবে, যাতে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেব কোনমতেই সহানুভূতি না পায়। মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্ট নির্দেশ এমন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে যাতে আগামী দিনে কেউ আর এই ধরনের কাজ করার সাহস না দেখায়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পরেই পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র গোটা ঘটনাকে অমানবিক হিসেবে চিহ্নিত করেন। ইতিমধ্যেই কলকাতা পুলিশের ডিসি সৈকত ঘোষের নেতৃত্বে ১ সদস্যের সিট গঠন করা হয়েছে। এই সিট বা বিশেষ তদন্তকারী দল গোটা বিষয়টি তদন্ত করছে। এর পাশাপাশি রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর‌ও একটি পৃথক তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

অভিযোগ উঠেছিল রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর বা কলকাতা পুরসভার একাংশের সঙ্গে যোগসযোগে ঘুরপথে দেবাঞ্জন দেবের কাছে করোনার টিকা পাচার হয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর শুক্রবার টিকার যাবতীয় হিসেব-নিকেশ পরীক্ষা করে দেখে। তাতে পরিষ্কার হয়ে যায় কোন‌ও টিকা বেহাত হয়নি। এর ফলে রাজ্যের স্বাস্থ্যকর্তারা তারা একরকম নিশ্চিত করোনা টিকার বদলে অন্য কিছু দিয়েই টিকাকরণ জালিয়াতি করেছে দেবাঞ্জন দেব।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পরই স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগাম এই বিষয়ে বিশেষ উদ্যোগ নেন। শনিবার কসবা এবং আমহার্স্ট স্ট্রিটের সিটি কলেজের কাছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর দুটি ক্যাম্প করছে। এই ক্যাম্পে ভুয়ো টিকা নেওয়া প্রত্যেকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। সেখানে যদি কারোর কোন‌ও শারীরিক সমস্যার নজরে আসে তবে স্বাস্থ্য দপ্তর তাদের চিকিৎসার যাবতীয় দায়িত্বভার গ্রহণ করবে। মুখ্যমন্ত্রী পরিষ্কার জানিয়েছেন ভুয়ো টিকা নেওয়ার কারণে যাতে কারোর ক্ষতি না হয় সেই বিষয়টি সবার আগে সুনিশ্চিত করতে।

এদিকে আরেকটি সূত্র মারফত জানা গিয়েছে দেবাঞ্জন দেব টিকাকরণ চালানোর জন্য ১৩ জনকে নিয়ে একটি বিশেষ দল গঠন করেছিল। সেইসঙ্গে ভুয়ো টিকাকরণ কর্মসূচি চালানোর জন্য এই অভিযুক্ত ২৫ লক্ষ টাকা খরচ করেছে বলে তদন্তকারীদের অনুমান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে