‘খেলা হবে’ স্লোগান’কে ছড়িয়ে দিতে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়াম থেকে খেলা হবে দিবসের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

0
166

মেট্রোলাইভ নিউজ ডেস্ক: সোমবার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়াম থেকে খেলা হবে দিবসের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই অনুষ্ঠানে শুরুতেই মমতা বললেন, খেলা হবে স্লোগান এখন খুব জনপ্রিয়। অন্য রাজ্যেও এই স্লোগান দেওয়া হচ্ছে। তবে মমতার কথায়, এখনও অল্পই খেলা হয়েছে। বাকি খেলা আগামিদিনে দেখানো হবে। এদিন ২৫ হাজার ক্লাবকে ৫ লক্ষ টাকা করে অনুদান দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। একই সঙ্গে তিনি জানান, ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে ছড়িয়ে দিতে হবে চারদিকে। তা আরও বেশি করে কার্যকর করতে হবে ক্লাবগুলিকে। আইএফএ বাংলা ফুটবল দলের জন্য যে নতুন জার্সি তৈরি করেছে এদিন সেই জার্সিরও উদ্বোধন হল এই অনুষ্ঠানে।

আগামী ১৬ অগস্ট রাজ্যজুড়ে ‘খেলা হবে দিবস’ ঘিরে নানা কর্মসূচি রয়েছে শাসকদলের। যদিও বিজেপির তরফে একাধিকবার অভিযোগ তোলা হয়েছে, এই ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে সামনে রেখেই তৃণমূল হিংসাকে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। বিজেপির অভিযোগ, ভোটের আগে বার বার খেলা হবে স্লোগান দিয়ে রক্ত ঝরানো হয়েছে এ বাংলায়। ভোটের পরও তাই হয়েছে। তবে সে সব অভিযোগ কে নস্যাৎ করে এদিন ‘খেলা হবে’ স্লোগান নতুন মাত্রা পেল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে। মমতার প্রত্যেকটি রাজনৈতিক লড়াইয়ের ইতিহাসকে সামনে রেখে রয়েছে এক একটি ‘দিবস’। নন্দীগ্রাম থেকে সিঙ্গুর কিংবা ২১ জুলাই। এবার তার সঙ্গে জুড়ে গেল একুশের ভোট বাংলার জনপ্রিয় স্লোগানও।

‘খেলা হবে দিবস’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মানুন ছাই না মানুন খেলা হবে কথাটা খুব পপুলার হয়ে গিয়েছে। সংসদ থেকে শুরু করে দিল্লি, রাজস্থান, গুজরাট সব জায়গায়। খেলা তো হবেই। প্রতি বছর ১৬ অগস্ট দিনটি খেলা হবে দিবস পালন করা হবে। খেলাশ্রী প্রকল্পের আওতায় ২৫ হাজার ক্লাব কে ৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। খেলা হবে স্লোগানকে চিরস্থায়ী করতে হলে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে কার্যকরী করতে হবে। আমি যখন নির্বাচনের সময় বিভিন্ন জায়গায় যেতাম তখন গাড়ি থেকে নামার আগেই সবাই খেলা হবে স্লোগান দিতে শুরু করত। আগামিদিনে সারা দেশেই খেলা হবে। আমি মনে করি খেলা হবে নিয়ে একটা গান করা দরকার।”

এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানান, আইএফএ-এর অন্তর্ভুক্ত ৩০৩টি ক্লাবকে ১০টি করে বল ও তিনটি প্রধান ক্লাবকে ১০০টি করে বল দেওয়া হবে। একইসঙ্গে ৩৪৩টি ব্লক, ১১৭টি পুরসভা, ৬টি পুরনিগম, কলকাতা পুরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ড, ২২টি জেলা নিয়ে ৬৩৩টি ক্লাব ও সংস্থাকেও এই বল দেওয়া হবে। অর্থাৎ সব মিলিয়ে মোট ৯৩৬টি ক্লাব ও সংস্থাকে ১০টি করে বল ও ১৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে খেলা হবে দিবসে।

‘স্বাস্থ্য ইঙ্গিত’ নামে একটি প্রকল্প রাজ্যের টেলিমেডিসিনে এদিন যুক্ত করা হল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার উদ্বোধন করেন। এই পরিষেবা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেওয়া হবে। রাজ্যের বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে যেসব স্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে সেখান থেকেই টেলিমেডিসিনের এই প্রকল্পের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের থেকে পরামর্শ পাবেন যে কোনও রোগী বা রোগীর পরিবার।

একই সঙ্গে রাজ্যের জঙ্গলমহল এলাকায় মাওবাদ থেকে দূরে সরে যাঁরা সমাজের মূল স্রোতে ফিরতে চেয়েছে এরকম ২২০ জনকে স্পেশাল হোমগার্ড পদে নিয়োগপত্র দেওয়া হল এদিন। এখনও পর্যন্ত ২০০০ জনকে এই চাকরি দেওয়া হয়েছে বলে সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। যার মধ্যে ১৩০০ প্রাক্তন মাওবাদী রয়েছেন। ৫০০-এর বেশি রয়েছেন এমন মানুষ, যাঁদের পরিবারের কেউ না কেউ মাওবাদী হামলায় মারা গিয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে