স্কুল সার্ভিস কমিশনের জমা দেওয়া হলফনামায় অসন্তুষ্ট বিচারপতি

0
288

মেট্রোলাইভ নিউজ ডেস্ক: স্কুলে চতুর্থ শ্রেণির কর্মী নিয়োগে বেনজির অনিয়মে ‘বিস্মিত’ হয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে কড়া অবস্থান নিতে দেখা গিয়েছে আদলতকে। যে ২৫ জনের নিয়োগ নিয়ে বেনিয়নের অভিযোগ, তাঁদের বেতন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, পুনরায় নির্দেশ না দেওয়া অবধি বন্ধ থাকবে বেতন। এই মামলায় নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে কমিশনের যে সুপারিশ ছিল না, তা হলফনামা দিয়ে আদালতকে জানাতে নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। সেই মতো বৃহস্পতিবার হলফনামা জমা দেয় স্কুল সার্ভিস কমিশন। কিন্তু কমিশনের জমা দেওয়া হলফনামা সন্তুষ্ট করতে পারেনি বিচারপতিকে। ক্ষুব্ধ বিচারপতি তা ফিরিয়ে দেন এবং আধ ঘণ্টার মধ্যে পুনরায় হলফনামা জমার দেওয়ার নির্দেশ দেন। এই ঘটনায় এদিন হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি দিয়ে তদন্তের বিষয়টি নিয়েও শুনানির সময় আলোচনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে চতুর্থ শ্রেণিতে প্রায় ১৩ হাজার নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে রাজ্য। সেই মতো পর্যায়ক্রমে পরীক্ষা ও ইন্টারভিউ নেয় এসএসসি। তার পর সেখান থেকে তারা একটি প্যানেল তৈরি করে। ২০১৯ সালে ওই প্যানেলের মেয়াদ শেষ হয়। অভিযোগ, প্যানেলের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও নিয়মবহির্ভূত ভাবে প্রচুর নিয়োগ করেছে কমিশন। আবার কমিশনের আঞ্চলিক অফিসের ক্ষেত্রেই এমন অভিযোগ উঠেছে। এখন তার মধ্যে ২৫ জনের নিয়োগের সুপারিশ তুলে ধরে মামলা করা হয় হাইকোর্টে। মঙ্গলবার মামলাটি ওঠে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের একক বেঞ্চে। ওই নিয়োগের সুপারিশে গন্ডগোল রয়েছে প্রাথমিক ভাবে এমনটা মনে করছিলেন বিচারপতি। কমিশনের উদ্দেশে তাঁর মন্তব্য ছিল, ‘‘যথেষ্ট হয়েছে। আঞ্চলিক অফিসের উপর নিয়ন্ত্রণ নেই কমিশনের তা বোঝাই যাচ্ছে। তথ্যও সে কথা বলছে। কীভাবে এমন কমিশন চলতে পারে!’’ বুধবার তিনি বলেন, ‘‘আমি চাই না আরও একটা ব্যপম-কাণ্ড হোক।’’

বুধবার কমিশনের সচিব হাজির হয়েছিলেন হাই কোর্টে। কমিশন জানিয়েছে, নিয়ম না মেনে যে নিয়োগের কথা বলা হচ্ছে তাতে তাদের কোনও সুপারিশ নেই। অর্থাৎ ওই নিয়োগ কমিশন করেনি বলে তাদের তরফে দাবি করা হয়। আর এই তথ্যই হলফনামা পেশ করে লিখিত আকারে জানতে চেয়েছিল আদলত। বিচারপতির মন্তব্য, ‘‘নিয়োগে যে কমিশনের সুপারিশ ছিল না হলফনামা দিয়ে আদালতকে তা জানাতে হবে। তার পরই তদন্তের গতিপ্রকৃতি নির্ধারিত হবে।’’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে